আগে দর্শন ধারী পরে গুন বিচারি”। প্রায় অনেকের দাঁত জন্মগত ভাবেই উঁচুনিচু, এবড়ো-থেবড়ো,এমনকি কারো কারো দাঁতের উপরে অথবা ঠিক দাঁতের পেছনে দাঁত উঠে। এতে করে অনেকেই প্রান খুলেহাসতে কিছুটা বিব্রত বোধ করেন অথবা তাদের খাবার চর্বণ এবং দাঁত পরিষ্কার রাখায় কিছুটা সমস্যারসম্মুখীন হতে হয়। আবার অনেকের দাঁতের উপরের পাঁটি সামনের দিকে এগিয়ে আসে, বিধায় মুখ বন্ধরাখতে সমস্যা হয় অথবা সবসময় ঠোঁটযুগল খোলা থাকে। অন্যদিকে, অনেকের নিচের পাঁটির দাঁতগুলোবেশি বাইরের দিকে বেরিয়ে আসে, এতে করেও নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যখন দাঁতের এইসামঞ্জস্য বিঁধানে সমস্যা থাকে, তখন এর সাথে আরও অন্যান্য কিছু শারীরিক সমস্যাও তৈরি হতে পারে,যেমন মুখের চোয়ালে ব্যাথা, শব্দ হওয়া, মুখে দুর্গন্ধ হওয়া ইত্যাদি।

#প্রশ্নঃ অর্থো চিকিৎসা কি শুধু আকর্ষণীয়ের জন্য ?
উত্তরঃ না এটা শুধু আকর্ষণীয়ের জন্য করা না। দাঁত আকা বাকা থাকলে ঠিক মত চাবানো যায় না। খাবার ঠিক মত মিশে না। তাই পাচন কাজ ও ঠিক মত হয়না। এছারাও কানের কাছে যে জয়েন্ট আছে তাতেও ব্যাথা অনুভব হয়।একটা বয়সে হাই তুলতে বা হাঁচি দিতে গিয়ে হা হয়ে থাকে। যাকে বলে ”লক জ”। যা অত্যন্ত বেদনাদায়ক।

#প্রশ্নঃ এটা কি বেদনাদায়ক চিকিৎসা?
উত্তরঃ জি না, তবে প্রথম দিকে একটু কষ্ট হবে কারন মুখে চুল পরলেও অস্থির লাগে তাই এতো কিছু লাগালে স্বাভাবিক ভাবে কিছুদিন কষ্ট হয়।এরপর অভ্যাস হয়ে যায়।

#প্রশ্নঃ এটা কি Costly ?
উত্তরঃ আপাত দৃষ্টিতে দেখলে মনে হয় তা কিন্তু টাকা টা আপনি এক্ সাথে দিচ্ছেন না। ৬ মাসে বা ১ বছর ধরে দিচ্ছেন ।


#সমাধানঃ দাঁতের সৌন্দর্য বাড়াতে এবং তাদের কার্যক্রম স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে অর্থডোন্টিক চিকিৎসার প্রয়োজন হয়। অর্থডোন্টিক চিকিৎসা এমন একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে আঁকাবাঁকা, উঁচুনিচু,ফাঁকা, এককথায় দাঁতের অসামঞ্জস্য শ্রেণীবিন্যাস স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সম্ভব।

ডাঃ তাবাসসুম মমতাজ প্রিয়াংকা
ডেন্টাল সার্জন
রামপুরা অর্থো ডেন্টাল সার্জারি ।